বাক্য সংকোচন বা বাক্য সংক্ষেপণ Last updated: 3 months ago

গুরুত্বপূর্ণ বাক্য সংকোচন বা বাক্য সংক্ষেপণ/এক কথায় প্রকাশ (অ-হ) পর্যন্তঃ

[অ]

১. অনুসন্ধানের ইচ্ছা —– অনুসন্ধিৎসা
২. অতিক্রমের যোগ্য —- অতিক্রমণীয়
৩. অগ্রে গমন করে যে — অগ্রগামী
৪. অতি উচ্চ ধ্বনি ———মহাধ্বনি
৫. অতিশয় রমণীয় ——– সুরম্য
৬. অনুচিত বল প্রয়োগকারী — হঠকারী
৭. অতি উচ্চ রোল – এর এক কথায় প্রকাশ কি—- উতরোল
৮. অবিবাহিত রাখা যায় না এমন নারী ————–অরক্ষণীয়া
৯. অণুকে দেখা যায় যার দ্বারা ———- অণুবীক্ষণ
১০. অল্পকাল স্থায়িত্ব যার —————- ক্ষণস্থায়ী
১১. অনেক অভিজ্ঞতা আছে যার —— বহুদর্শী
১২. অকালে পক্ব হয়েছে যা————– অকালপক্ব
১৩. অল্প কথা বলে যে- এর বাক্য সংকোচন কি?— অল্পভাষী
১৪. অক্ষির অগোচরে- এর বাক্য সংকোচন কি?—  পরোক্ষ
১৫. অনেকের মধ্যে একজন—- অন্যতম
১৬. অহংকার নেই যার ———– নিরহংকার
১৭. অভিজ্ঞতার অভাব আছে যার- অনভিজ্ঞ
১৮. অগ্রসর হয়ে অভ্যর্থনা———- প্রত্যুদগমন
১৯. অতি উচ্চ বিকট হাসি ———- অট্টহাসি
২০. অতি আসন্ন – এর বাক্য সংকোচন কি?— অত্যাসন্ন
২১. অবলীলার সঙ্গে- এর বাক্য সংকোচন কি?—  সাবলীল
২২. অন্তরের ভাব জানেন যিনি- এর বাক্য সংকোচন কি?—  অন্তর্যামী
২৩. অন্ধকার রাত্রি -এর এক কথায় প্রকাশ কি?– তামসী
২৪. অণ্বেষণ করার ইচ্ছা-এর এক কথায় প্রকাশ কি?– অণ্বেষা
২৫. অবশ্যই যা হবে- অবশ্যম্ভাবী
২৬. অশ্বের চালক – সাদি, সারথি
২৭. অলংকারের ধ্বনি — শিঞ্জন
২৮. অন্য গতি নেই যার– অগত্যা
২৯. অন্তর্গত অপ যার — অন্তরীপ
৩০. অন্য দিকে মন যার — অন্যমনা
৩১. অন্ত নেই যার — অনন্ত
৩২. অধ্যাপনা করেন যিনি — অধ্যাপক
৩৩. অন্য কোনো গতি নেই যার — অনন্যগতি
৩৪. অনায়াসে যা লাভ করা যায়— অনায়াসলভ্য
৩৫. অরিকে জয় করেছে যে —— অরিজিৎ
৩৬. অল্প পরিশ্রমে শ্রান্ত নারী—– ফুলটুসি
৩৭. অর্থহীন উক্তি-এর এক কথায় প্রকাশ কি?– প্রলাপ
৩৮. অতিকষ্টে যা নিবারণ করা যায় — দুর্নিবার
৩৯. অতর্কিত অবস্থায় হত্যাকারী বা আক্রমণকারী–আততায়ী
৪০. অগ্র-পশ্চাৎ ক্রম অনুযায়ী- আনুপূর্বিক
৪১. অন্য উপায় নেই যার— অনন্যোপায়
৪২. অন্য লোক-এর এক কথায় প্রকাশ কি?–লোকান্তর
৪৩. অন্য জন্ম — জন্মান্তর
৪৪. অন্য কাল — কালান্তর
৪৫. অন্য দেশ — দেশান্তর
৪৬. অন্য গ্রাম — গ্রামান্তর
৪৭. অন্য মত — মতান্তর
৪৮. অন্য বারে(অন্য সময়ে) — বারান্তর
৪৯. অতিক্রম করা যায় না যা — অনতিক্রম্য, অনতিক্রমণীয়
৫০. অশ্বের ডাক -এর এক কথায় প্রকাশ কি?– হ্রেষা
৫১. অস্ত্রের দ্বারা উপচার — অস্ত্রোপচার
৫২. অবিবাহিত কন্যার গর্ভজাত সন্তান — কালীন
৫৩. অক্ষির সমক্ষে বর্তমান — প্রত্যক্ষ
৫৪. অশ্ব রাখার স্থান — আস্তাবল
৫৫. অন্য গতি -এর এক কথায় প্রকাশ কি?– গত্যন্তর
৫৬. অন্য কোনো কর্ম নেই যার — অনন্যকর্মা
৫৭. অবিবাহিত ব্যক্তি — অকৃতদার, অনূঢ়
৫৮. অহনের অপর অংশ — অপরাহ্ন
৫৯. অহনের মধ্য অংশ — মধ্যাহ্ন
৬০. অহনের পূর্বাংশ — পূর্বাহ্ন
৬১. অর্ধেক সম্মত — নিমরাজি
৬২. অভ্রকে লেহন করে যে — অভ্রংলেহী
৬৩. অব্যক্ত মধুর ধ্বনি — কলতান
৬৪. অপকার করার ইচ্ছা — অপচিকীর্ষা
৬৫. অন্ন ভক্ষণ করে যে প্রাণ ধারণ করে — অন্নগতপ্রাণ
৬৬. অনুকরণ করার ইচ্ছা — অনুচিকীর্ষা
৬৭. অগ্র পশ্চাৎ বিবেচনা না করে যে কাজ করে — অবিমৃষ্যকারী

[আ] -এর বাক্য সংকোচন:

৬৮. আমার সদৃশ — মাদৃশ
৬৯. আত্মাকে অধিকার করে — অধ্যাত্ম
৭০. আবক্ষ জলে নেমে স্নান — অবগাহন
৭১. আরোহন করে যে — আরোহী
৭২. আদি নেই যার — অনাদি
৭৩. আপনাকে ভুলে থাকে যে — আত্মভোলা
৭৪. আদি থেকে অন্ত পর্যন্ত — আদ্যন্ত
৭৫. আকাশ ও পৃথিবী — ক্রন্দসী
৭৬. আকাশ মাধ্যমে আগতবাণী — আকাশবাণী
৭৭. আইন বিরোধী -এর এক কথায় প্রকাশ কি?– বে – আইনি
৭৮. আপনাকে কৃতার্থ মনে করেন যিনি — কৃতার্থম্মন্য
৭৯. আয় বুঝে যিনি ব্যয় করেন — মিতব্যয়ী
৮০. আপনার রং লুকায় যে — বর্ণচোরা
৮১. আকাশ স্পর্শ করে যা — আকাশস্পর্শী
৮২. আপনাকে কেন্দ্র করে যার চিন্তা — আত্মকেন্দ্রিক
৮৩. আঘাতের বদলে আঘাত — প্রত্যাঘাত, প্রতিঘাত
৮৪. আপনাকে যে হত্যা করে — আত্মঘাতী
৮৫. আয়ুর জন্য হিতকর — আয়ুষ্য
৮৬. আট প্রহর যা পরা হয় — আটপৌরে
৮৭. আকাশে বেড়ায় যে -এর এক কথায় প্রকাশ কি?– খেচর, আকাশচারী
৮৮. আচারে যার নিষ্ঠা আছে -এর এক কথায় প্রকাশ কি?– আচারনিষ্ঠ
৮৯. আপনাকে যে পণ্ডিত মনে করে — পণ্ডিতম্মন্য
৯০. আল্লাহর অস্তিত্বে বিশ্বাস আছে যার — আস্তিক
৯১. আল্লাহর অস্তিত্বে বিশ্বাস নেই যার — নাস্তিক
৯২. আরাধনার যোগ্য — আরাধ্য
৯৩. আকস্মিক দুর্দৈব — উপদ্রব
৯৪.  আজন্ম শত্রু — জাতমত্রু
৯৫. আকালের বছর — দুর্বছর
৯৬. আকাশে যে বিচরণ করে — নভোচারী
৯৭. আগামীকালের পরের দিন  — পরশু
৯৮. আঘাতের বিপরীত — প্রত্যাঘাত, প্রতিঘাত

[]

৯৯. ইক্ষু হতে জাত — ঐক্ষব
১০০. ইহার তুল্য — ঈদৃশ
১০১. ইতি মধ্যকার ঘটনা — ইদানীং
১০২. ইহলোক বিষয়ক — ঐহিক
১০৩. ইষ্টক নির্মিত গৃহ — অট্টালিকা
১০৪. ইতিহাস বিষয়ে অভিজ্ঞ ‍যিনি — ইতিহাসবেত্তা
১০৫. ইন্দ্রিয়কে জয় করেছে যে — জিতেন্দ্রিয়
১০৬. ইতিহাস রচনা করেন যিনি — ঐতিহাসিক
১০৭. ইহলোকে যা সামান্য নয় – এর বাক্য সংকোচন কি?— অলোকসামান্য
১০৮. ইসলামি শাস্ত্র অনুযায়ী নির্দেশ — ফতোয়া

[ঈ]

১০৯. ঈশ্বর বিষয়ক — ঐশ্বরিক
১১০. ঈশ্বরের ভাব — ঐশ্বর্য
১১১. ঈষৎ নীল — আনীল
১১২. ঈষৎ কৃষ্ণ — কালচে
১১৩. ঈষৎ হাস্য — স্মিত
১১৪. ঈষৎ কম্পিত — আধুত
১১৫. ঈষৎ মধুর — আমধুর
১১৬. ঈষৎ উষ্ণ — কবোষ্ণ
১১৭. ঈষৎ নীলবর্ণ — নীলাভ
১১৮. ঈষৎ রক্তবর্ণ — আরক্ত
১১৯. ইষৎ আমিষ গন্ধ যার – এর বাক্য সংকোচন কি?– আঁষটে

[উ]

১২০. উপকারীর অপকার করে যে — কৃতঘ্ন
১২১. উপকারীর উপকার স্বীকার করে যে — কৃতজ্ঞ
১২২. উপকার করার ইচ্ছা — উপচিকীর্ষা
১২৩. উপকারীর উপকার যে স্বীকার করে না — অকৃতজ্ঞ
১২৪. উপকারের বদলে উপকার — প্রত্যুপকার
১২৫. উদর সম্পর্কিত — ঔদরিক
১২৬. উত্তর দিক সম্পর্কিত — উদীচ্য
১২৭. উলু উলু ধ্বনি — অলোলিকা
১২৮. উপসনার যোগ্য — উপাস্য
১২৯. উদ্ভিদের নতুন পাতা — পল্লব/কিশলয়
১৩০. উদ্দাম নৃত্য – এর বাক্য সংকোচন কি?— তাণ্ডব
১৩১. উদগীরণ করা হয়েছে এমন — উদগীর্ণ
১৩২. উপন্যাস রচিয়তা — ঔপন্যাসিক
১৩৩. উচ্চ হাস্যকারী – এর বাক্য সংকোচন কি?— অট্টহাসক
১৩৪. উল্লেখ করা হয় না যা — ঊহ্য
১৩৫. উদিত হচ্ছে যা — উদীয়মান
১৩৬. উপস্থিত বুদ্ধি প্রয়োগের ক্ষমতা — প্রত্যুৎপন্নমতিত্ব
১৩৭. উত্তপ্ত করা হয়েছে — উত্তাপিত
১৩৮. উপায় নেই যার — নিরুপায়

[ঊ]

১৩৯. ঊর্ধ্বদিকে গমন করে যে — ঊর্ধ্বগামী
১৪০. ঊর্ধ্বদিকে গতি যার — উর্ধ্বগতি
১৪১. ঊর্ধ্ব থেকে নেমে আসা — অবতরণ
১৪২. উর্ধ্ব মুখে সাঁতার — চিৎসাঁতার
১৪৩. ঊরুর হাড় — ঊর্বস্থি

[ঋ]

১৪৪. ঋষির তুল্য -এর এক কথায় প্রকাশ কি?– ঋষিতুল্য
১৪৫. ঋতুতে ঋতুতে যজ্ঞ করেন যিনি — ঋত্বিক
১৪৬. ঋণশোধে অসমর্থ — দেউলিয়া
১৪৭. ঋষির ন্যায় -এর এক কথায় প্রকাশ কি?– ঋষিকল্প
১৪৮. ঋণ নেয় যে — অধমর্ণ
১৪৯. ঋণ দেয় যে — উত্তমর্ণ

[এ]

১৫০.  এক থেকে শুরু করে ক্রমাগত — একাদিক্রমে
১৫১. এক স্থান থেকে অন্য স্থানে ঘুরে ঘরে বেড়ায় যে — যাযাবর
১৫২. এক তারযুক্ত বাদ্যযন্ত্র — একতারা
১৫৩. এক দিকে দৃষ্টি যার — একচোখা
১৫৪. এক দিন আয়ু বিশিষ্ট — ঐকাহিক
১৫৫. এক দিনে তিন তিথির যোগ — ত্র্যহস্পর্শ
১৫৬. এক বিষয়ে যার চিত্ত নিবিষ্ট — একাগ্রচিত্ত
১৫৭. এক ভাষার মধ্যে অন্য ভাষার প্রয়োগ — বুকনি
১৫৮. একই মাতার গর্ভ জাত ভাই — সহোদর
১৫৯. একই সময়ে — যুগপৎ
১৬০. একই সময়ে বর্তমান — সমসাময়িক
১৬১. একই কালে বর্তমান — সমকালীন
১৬২. একই গুরুর শিষ্য — সতীর্থ
১৬৩. একই অর্থের শব্দ — প্রতিশব্দ
১৬৪. এ পর্যন্ত যার শত্রু জন্মায়নি — অজাতশত্রু
১৬৫. একের পরিবর্তে অনেক — বিকল্প
১৬৬. একের পরিবর্তে অপরের সই — বকলম
১৬৭. একবার শুনলে যার মনে থাকে — শ্রুতিধর
১৬৮. একসঙ্গে যারা যাত্রা করে — সহযাত্রী
১৬৯. এঁটেল ও বেলে মাটির মিশ্রণ — দোআঁশ

[ঐ]

১৭০. ঐক্যের অভাব আছে যার — অনৈক্য
১৭১. ঐশ্বর্যের অধিকারী যিনি -এর এক কথায় প্রকাশ কি?– ঐশ্বর্যবান/ ভগবান

[ও]

১৭২. ওষ্ঠ ও অধর — ওষ্ঠাধর
১৭৩. ওষধি থেকে উৎপন্ন — ঔষধ
১৭৪. ওষ্ঠের দ্বারা উচ্চারিত — ওষ্ঠ্য
১৭৫. ওজন করা হয় যে যন্ত্রের সাহায্যে — তুলাদণ্ড

[ঔ]

১৭৬. ঔষধের বিপণি -এর এক কথায় প্রকাশ কি?– ঔষধালয়
১৭৭. ঔষধের আনুষঙ্গিক সেব্য — অনুপান

[ক]

১৭৮. কর্ম সম্পাদনে পরিশ্রমী — কর্মঠ
১৭৯. কর্ম করার শক্তি যার নেই — অকর্মণ্য
১৮০. কর্ণ পর্যন্ত — আকর্ণ
১৮১. কণ্ঠ পর্যন্ত — আকণ্ঠ
১৮২. কালে যা ঘটে — কালীন
১৮৩. কাচের তৈরি ঘর — শিশমহল
১৮৪. কৃষি থেকে উৎপন্ন — কৃষিজ
১৮৫. কৃষ্ণপক্ষের শেষ তিথি — অমাবস্যা
১৮৬. কেউ যা জানে না — অজ্ঞাত/অজানা
১৮৭. কাম ক্রোধ লোভাদির বশীভূত — অজিতেন্দ্রীয়
১৮৮. কথা যে বলতে পারে না — অবলা
১৮৯. কোথাও উঁচু কোথাও নিচু — বন্ধুর
১৯০. কখনও যা চিন্তা করা যায় না — অচিন্ত/অচিন্তনীয়
১৯১. কী করতে হবে স্থির করতে না পারা — কিংকর্তব্যবিমূঢ়
১৯২. কুকুরের পায়ের মতো পা যার — শ্বাপদ
১৯৩. কুকুরের ডাক — -এর এক কথায় প্রকাশ কি?– বুক্কন
১৯৪. কুৎসিত আকার যার — কদাকার
১৯৫. কূলের বিপরীত — প্রতিকূল
১৯৬. কোনো কিছুতে ভয় নেই যার — অকুতোভয়
১৯৭. কাজের যোগ্য — কেজো
১৯৮. করা হয়েছে যা — কৃত
১৯৯. ক্রিয়া দ্বারা নিষ্পন্ন — কৃত্রিম
২০০. কল্পনার দ্বারা রচিত মূর্তি — ভাবমূর্তি
২০১. কিছু বলতে যার ঠোঁট বাদে না — ঠোঁটকাটা
২০২. কষ্টে অতিক্রম করা যায় না — দূরতিক্রম্য
২০৩. ক্রিয়ার বিপরীত — প্রতিক্রিয়া
২০৪. কানায় কানায় জলে পূর্ণ — টইটুম্বুর

[খ]

২০৫. খাবার যোগ্য -এর এক কথায় প্রকাশ কি?–খাদ্য
২০৬. খাবার ইচ্ছা — ক্ষুধা
২০৭. খাওয়ার জন্য যে খরচ — খাইখরচ
২০৮. খাতাপত্র রাখার ঘর — দপ্তরখানা
২০৯. খরচের হিসাব নেই যার — বেহিসেবী
২১০. খুব দীর্ঘ নয় — নাতিদীর্ঘ
২১১. খ্যাতি আছে যার — খ্যাতিমান
২১২. খাদ নেই যাতে — নিখাদ

[গ]

২১৩. গোপন করার ইচ্ছা — জুগুপ্সা
২১৪. গোরু রাখার স্থান — গোশালা
২১৫. গোরুর মতো নিরীহ — গোবেচারা
২১৬. গোরুর দুধ থেকে জাত — গব্য
২১৭. গোরু চলাচলের পথ — গোপথ /গোপাট
২১৮. গম্ভীর ধ্বনি — মন্দ্র
২১৯. গৃহে থাক যে — গৃহস্থ
২২০. গ্রন্থ রাখার গৃহ — গ্রন্থাগার
২২১. গাড়ি চালায় যে — গাড়োয়ান
২২২. গৈরিক বর্ণে রঞ্জিত — গেরুয়া
২২৩. গ্রহণ করার যোগ্য — গ্রাহ্য
২২৪. গুরুর ভাব — গরিমা
২২৫. গভীর রাত্রি — নিশীথ
২২৬. গমন করতে পারে যে — জঙ্গম
২২৭. গণনার অযোগ্য — নগণ্য
২২৮. গ্রহন করার ইচ্ছা — জিঘৃক্ষা
২২৯. গৃহের অভ্যন্তরে গৃহ — অন্তগৃহ
২৩০. গরু রাখার স্থান –গোহাল
২৩১. গরুর ডাক — হাম্বা
২৩২. গরু চরায় যে — রাখাল

[ঘ]

২৩৩. ঘোড়ার ডাক — হ্রেষা
২৩৪. ঘোড়া রাখার স্থান — আস্তাবল
২৩৫. ঘোড়ায় টানা গাড়ি — ঘোড়াগাড়ি
২৩৬. ঘোড়ার গাড়ির চালক — কোচোয়ান
২৩৭. ঘোলার ভাব — ঘোলাটে
২৩৮. ঘটকের কাজ — ঘটকালি
২৩৯. ঘন লোম বিশিষ্ট — লোমশ

[চ]

২৪০. চিরস্থায়ী নয় — নশ্বর
২৪১. চৈত্র মাসের ফসল — চৈতালি
২৪২. চিরকাল মনে রাখার যোগ্য — চিরস্মরণীয়
২৪৩. চক্ষুর সম্মুখে সংঘটিত — চাক্ষুষ
২৪৫. চক্ষুলজ্জাহীন ব্যক্তি — চশমখোর
২৪৬. চোখে দেখা যায় যা — প্রত্যক্ষ
২৪৭. চার রাস্তার মিলন স্থল — চৌরাস্তা
২৪৮. চুষে খেতে হয় যা — চোষ্য
২৪৯. চিবিয়ে খেতে হয় যা — চর্ব্য
২৫০. চিত্রকর্মের কাঠামো — নকশা
২৫১. চালচলনের উৎকর্ষ— সভ্যতা
২৫২. চোখে যার লজ্জা নেই — চশমখোর।

[ছ]

২৫৩. ছেদনের যোগ্য -এর এক কথায় প্রকাশ কি?– ছেদ্য
২৫৪. ছেঁকে নেওয়া হয়েছে এমন — ছানিত
২৫৫. ছয় মাস পর পর ঘটে যা — ষান্মাসিক
২৫৬. ছয় পদ আছে যার — ঘট্পদ
২৫৭.  ছয় মাস অন্তর -এর এক কথায় প্রকাশ কি?– ষান্মাসিক
২৫৮. ছন্দে নিপুন যিনি — ছান্দসিক
২৫৯. ছল করে কান্না — মায়াকান্না
২৬০. ছিন্ন বস্ত্র — চীর
২৬১. ছুটছে যা — ছুটন্ত
২৬২. ছোট ছোট গাছ — গাছড়া

[জ] -এর বাক্য সংকোচন:

২৬৩. জন্মেনি যে -এর এক কথায় প্রকাশ কি?– অজ
২৬৪. জীবীত থাকার ইচ্ছা — জিজীবিষা
২৬৫. জীবিত থেকেও যে মৃত — জীবন্মৃত
২৬৬. জীবনধারণের বৃত্তি — জীবিকা
২৬৭. জানার ইচ্ছা — জিজ্ঞাসা
২৬৮. জানতে ইচ্ছুক — জিজ্ঞাসু
২৬৯. জানার যোগ্য — জ্ঞাতব্য
২৭০. জানা যায় না যা — অজ্ঞেয়
২৭১. জয় করার ইচ্ছা — জিগীষা
২৭২. জয় করার যোগ্য — বিজেয়
২৭৩. জয় করতে ইচ্ছুক—জিগীষু
২৭৩. জয়সূচক যে উৎসব — জয়ন্তী
২৭৪. জলস্রোতের শব্দ — ছলছল
২৭৫. জলপ্রবাহের ধ্বনি — ছলছলানি
২৭৬. জলে চরে যে — জলচর
২৭৭. জলে জন্মে যা — জলজ
২৭৮. জল দেখে ভয় পাওয়া — জলাতঙ্ক
২৭৯. জানু পর্যন্ত — আজানু
২৮০. জানু পর্যন্ত লম্বিত — আজানুলম্বিত
২৮১. জনগণের আবাস্থান — জনপদ
২৮২. জাহাজের আশ্রয়স্থল — পোতাশ্রয়
২৮৩. জ্বলজ্বল করছে যা — জাজ্বল্যমান
২৮৪. জানা আছে যা -এর বাক্য সংকোচন কি?—জ্ঞাত
২৮৫. জানা নেই যা — অজ্ঞাত
২৮৬. জায়া ও পতি — দম্পতি
২৮৭. জলে ও স্থলে চরে যে–এর বাক্য সংকোচন কি?-উভচর
২৮৮. জনশূন্য স্থান — নির্জন
২৮৯. জীবন পর্যন্ত — আজীবন

[ঝ]

২৯০. ঝনঝন শব্দ — ঝংকার
২৯১. ঝড়ের প্রচণ্ড ধাক্কা — ঝাপটা
২৯২. ঝাড়মোছ করা হয় যা দিয়ে — ঝাড়ন
২৯৩. ঝট করে টান — ঝটকা

[ট]

২৯৪. টোল পড়েনি এমন — নিটোল

[ঠ]

২৯৫. ঠাকুরের ভাব — ঠাকুরালি
২৯৬. ঠান্ডায় পীড়িত -এর এক কথায় প্রকাশ কি?– শীতার্ত
২৯৭. ঠিক নয় — বেঠিক
২৯৮. ঠাট্টাছলে ইঙ্গিত — ঠেসারা

[ড]

২৯৯. ডাক বহন করে যে — ডাক হরকরা
৩০০. ডুব দিতে জানে যে — ডুবুরি
৩০১. ডিঙি বাইবার দাঁড় — বৈঠা
৩০২. ডালের আগা — মগডাল

[ঢ]

৩০৩. ঢোল বাজায় যে — ঢুলি
৩০৪. ঢাক বাজায় যে — ঢাকি
৩০৫. ঢাকার অধিবাসী — ঢাকাইয়া
৩০৬. ঢাকায় প্রস্তুত — ঢাকাই
৩০৭. ঢিপির মতো — ঢ্যাপসা
৩০৮. ঢেউয়ের ফলে ছলাৎ ছল শব্দ — ছলছল
৩০৯. ঢেউয়ের ধ্বনি — কল্লোল

[ত]

৩১১. তল স্পর্শ করা যায় না যার — অতলস্পর্শী
৩১২. তেজ আছে যার — তেজস্বী
৩১৩. তাল জ্ঞান নেই যার — তালকানা
৩১৪. তিন নয়নে বা লোচন যার — ত্রিনয়না, ত্রিলোচনা
৩১৫. তির নিক্ষেপ করে যে — তিরন্দাজ
৩১৬. তবলা বাজায় যে — তবলচি
৩১৭. তন্তু দিয়ে বয়ন করে যে — তন্তুবায়
৩১৮. তর্ক করে যে — তার্কিক
৩১৯. ত্বরায় গমন করে যে — তুরগ
৩২০. তটে বা তীরে অবস্থিত  — তটস্থ
৩২১. তরঙ্গ উঠেছে যাতে — তরঙ্গায়িত
৩২২. তালু থেকে উচ্চারিত — তালব্য
৩২৩. তার মতো — তাদৃশ
৩২৪. তোপের ধ্বনি — গুড়ুম
৩২৫. তেলে যা ভাজা হয় — তেলে ভাজা
৩২৬. তুলা থেকে তৈরি — তুলট
৩২৭. তুমুল ঝগড়া — তুলকালাম
৩২৮. ত্রাণ করেন যিনি — ত্রাতা
৩২৯. তিন ফলের সমাহার — ত্রিফলা
৩৩০. তন্তু থেকে জাত — তন্তুজ
৩৩১. তন্তু দিয়ে বয়ন করে যে — তন্তুবায়
৩৩২. তিন ভাগের এক ভাগ — তেহাই
৩৩৩. তস্করের কাজ -এর এক কথায় প্রকাশ কি?– তাস্কর্য
৩৩৫. তিল তিল করে আহৃত সৌন্দর্যে নির্মিত প্রতিমা — তিলোত্তমা
৩৩৬. ত্রিকাল দর্শন করেন যিনি — ত্রিকালদর্শী
৩৩৭. তুষের আগুনের মতো মর্মদাহী — তুষানল
৩৩৮. ত্যাগ করা হয়েছে যা — ত্যক্ত
৩৩৯. তুষ্ট করা হয়েছে যা — তোষিত
৩৪০. তিন চরণ যুক্ত পদ্য — ত্রিপদী
৩৪১. তিন ফলক যুক্ত শূল — ত্রিশূল
৩৪২. তরুলতা বেষ্টিত স্থান — নিকুঞ্জ
৩৪৩. তিল মিশিয়ে রান্না করা ভাত — ত্রিসর
৩৪৪. তোমার মতো —এর এক কথায় প্রকাশ কি?– ত্বাদৃশ
৩৪৫. তনুর ভাব — তনিমা
৩৪৬. তিনটি সরলরেখা দ্বারা বেষ্টিত যে ক্ষেত্র — ত্রিভুজ
৩৪৭. তীর ছোঁড়ে যে– তীরন্দাজ
৩৪৮. তুলনা হয় না এমন — অতুলনীয়
৩৪৯. তিন রাস্তার মোড় — তেমাথা
৩৫০. তাল ঠিক নেই যার — বেতাল

[থ] -এর বাক্য সংকোচন:

৩৫১. থেমে থেমে চলার যে ভঙ্গি — ঠমক
৩৫২. থাবার আঘাত — থাপড়

[দ]

৩৫৩. দৃষ্টির অগোচরে –এর বাক্য সংকোচন কি? — অদৃশ্য
৩৫৪. দেখার ইচ্ছা — দিদৃক্ষা
৩৫৫. দ্বীপের সদৃশ — উপদ্বীপ
৩৫৬. দূরকে দেখার যন্ত্র — দূরবিন
৩৫৭. দেশের প্রতি প্রেম আছে যার — দেশপ্রেমিক
৩৫৮. দুর্লভ বিষয় বা বস্তু লাভের আশা — দুরাশা
৩৫৯. দুষ্ট বা কদর্য আলাপ — দুরালাপ
৩৬০.  দ্বীপে জন্ম হয়েছে যার — দ্বৈপায়ন
৩৬১. দর্প নাশ করে যে — দর্পহারী/দর্পনাশী
৩৬২. দ্বারে থাকে যে — দ্বারী
৩৬৩. দোহনের যোগ্য — দোহনীয়
৩৬৪. দ্রব হয়েছে যা — দ্রবীভূত
৩৬৫. দাড়ি জন্মেনি যার — অজাতশ্মশ্রু
৩৬৬. দেওয়া হয়েছে যা — দত্ত
৩৬৭. দাসের ভাব — দাস্য
৩৬৮. দুহিতার পুত্র — দৌহিত্র
৩৬৯. দ্বিতীয়বার বিবাহিতা নারী — পুনর্ভূ
৩৭০. দ্বীপ সম্বন্ধীয় — দ্বৈপ
৩৭১. দেহে, মনে ও কথায় — কায়মনোকাক্যে
৩৭২. দমন করা যায় না যাকে — অদম্য
৩৭৩. দিনে যে একবার আহার করে — একাহারী
৩৭৪. দানের যোগ্য — দাতব্য
৩৭৫. দীর্ঘ কর্ণ — কর্ণিল
৩৭৬. দেবতা থেকে উৎপন্ন বা দৈবজাত — আধিদৈবিক
৩৭৭. দিবসের প্রথম ভাগ — পূর্বাহ্ন
৩৭৮. দিবসের মধ্য ভাগ — মধ্যাহ্ন
৩৭৯. দিবসের শেষ ভাগ — অপরাহ্ন
৩৮০. দুদিকে অপ যার — দ্বীপ
৩৮১. দুবার ফল ধরে যে গাছে — দোফলা
৩৮২. দুরথীর যুদ্ধ — দ্বৈরথ
৩৮৩. দণ্ড দিবার যোগ্য — দণ্ডনীয়
৩৮৪. দুই নদীর মধ্যবর্তী স্থান — দোয়াব
৩৮৫. দুয়ের মধ্যে একটি — অন্যতর
৩৮৬. দুই বার জন্মে যে — দ্বিজ
৩৮৭. দুই অক্ষর বিশিষ্ট — দ্ব্যক্ষর
৩৮৮. দুই প্রকার অর্থ যার — দ্ব্যর্থ
৩৮৯. দুবার উক্তি –এর বাক্য সংকোচন কি? — দ্বিরুক্তি
৩৯০. দুহাত সমান চলে যার — সব্যসাচী
৩৯১. দীপ্তি পাচ্ছে যা —  দীপ্যমান

[ধ]

৩৯২. ধুলার মতো যার রং — পাংশুল
৩৯৩. ধারণ করার যোগ্য — ধারণীয়
৩৯৪. ধূপের ধোঁয়া বা গন্ধ দ্বারা সুরভিত– ধূপায়িত
৩৯৫. ধর্মে অত্যন্ত অনুরক্ত — ধর্মিষ্ঠ
৩৯৬. ধুলা ঝাড়ার কাপড় — ঝাড়ন
৩৯৭. ধনুকের ধ্বনি -এর এক কথায় প্রকাশ কি?– টঙ্কার
৩৯৮. ধনের দেবতা — কুবের
৩৯৯. ধ্যান করেন যিনি — ধ্যানী
৪০০. ধ্যানে যিনি মগ্ন — ধ্যানস্থ
৪০১. ধারা ধরে চলে যা — ধারাবাহিক
৪০২. ধী আছে যার — ধীমান
৪০৩. ধোঁয়ার ন্যায় বর্ণযুক্ত — ধোাঁয়াটে
৪০৪. ধীরে যে গমন করে — ধীরগামী
৪০৫. ধনুকের ছিলা — জ্যা
৪০৬. ধ্যান করা হয়েছে এমন — ধ্যাত
৪০৭. ধুলায় পরিণত — ধূলিসাৎ

[ন] -এর বাক্য সংকোচন:

৪০৮. নষ্ট হওয়া স্বভাব যার — নশ্বর
৪০৯. নাড়ী জ্ঞান নেই যার — আনাড়ি
৪১০. নেই শোক যার — অশোক
৪১১. নদী মাতা যার — নদীমাতৃক
৪১২. নিবারণ করা যায় না যা — অনিবার্য
৪১৩. নিন্দার যোগ্য নয় যা — অনিন্দনীয়, অনিন্দ্য
৪১৪. নিবারণ করা যায় না যা — দুর্নিবার
৪১৫. নিজেকে সামলাতে পারে না যে — অসংযমী
৪১৬. নিজেকে হত্যা করে যে — আত্মঘাতী
৪১৭. নৌকা চালায় যে — নাবিক
৪১৮. নদী মেখলা যে দেশের — নদীমেখলা
৪১৯. নিজেকে যে পণ্ডিত মনে করে — পণ্ডিতম্মন্য
৪২০. নিজেকে হীন মনে করা — হীনম্মন্যতা
৪২১. নাটকের পাত্রপাত্রী -এর বাক্য সংকোচন কি?– কুশীলব
৪২২. নূপুরের ধ্বনি  — এর বাক্য সংকোচন কি?– নিক্কন
৪২৩. নৌ চলাচলের যোগ্য — নাব্য
৪২৪. নির্বাচনের যোগ্য — নির্বাচ্য
৪২৫. নিন্দার যোগ্য — নিন্দ্য, নিন্দনীয়
৪২৬. নামের চিহ্ন — নামাঙ্ক
৪২৭. নিন্দাসূচক উক্তি — এর বাক্য সংকোচন কি?—- টিটকারি
৪২৮. নিবিড় অরণ্য — কান্তার
৪২৯. নিতান্ত দগ্ধ হয় যে সময় — নিদাঘ
৪৩০. নিশা কালে যে চরে বেড়ায় — নিশাচর
৪৩১. নিন্দা করার ইচ্ছা — জুগুপ্সা
৪৩২. নির্ভুল মুনিবাক্য — আপ্তবাক্য
৪৩৩. নলের আকারে জমানো বরফ — কুলপি
৪৩৪. নিষ্কাশিত সারবস্তু — নির্যাস

[প]

৪৩৫. পূর্বে জন্মেছে যে — এর এক কথায় প্রকাশ কি?– অগ্রজ
৪৩৬. পরে জন্মেছে যে — অনুজ
৪৩৭. পরিমিত কথা বলে যে — মিতভাষী
৪৩৮. পরিমিত আহার করে যে — মিতাহারী
৪৩৯. প্রিয় বাক্য বলে যে — প্রিয়ভাষী
৪৪০. পুত্র নাই যার — অপুত্রক
৪৪১. পৃথিবীর সাথে সম্পর্কযুক্ত যা — পার্থিব
৪৪২. পঙ্কে জন্মে যা — পঙ্কজ
৪৪৩. পড়া হয়েছে যা — পঠিত
৪৪৪. পুনঃপুন দুলছে যা — দোদুল্যমান
৪৪৫. পুনঃপুন জ্বলছে যা — জাজ্বল্যমান
৪৪৬. পুনঃপুন দীপ্তি পাচ্ছে — দেদীপ্যমান
৪৪৭. পাখির ডাক — কূজন
৪৪৮. পান করার যোগ্য — পেয়
৪৪৯. পান করার অযোগ্য — অপেয়
৪৫০. পাওয়ার ইচ্ছা — ঈপ্সা
৪৫১. প্রভাতে শোভাযাত্রা করে সমস্বরে গান করা — প্রভাতফেরি
৪৫২. পথিকের বিশ্রাম ও আহারাদি করার গৃহ — পান্থশালা
৪৫৩. পেতে ইচ্ছুক — প্রেপ্সু
৪৫৪. পা ধোয়ার পানি — পাদ্য
৪৫৫. পা থেকে মাথা পর্যন্ত — আপাদমস্তক
৪৫৬. পরিণাম চিন্তা করে যে কাজ করে — পরিণামদর্শী
৪৫৭. পণ্ডিত হয়েও যে মূর্খ — পণ্ডিতমূর্খ
৪৫৮. পড়ার উপযুক্ত — পঠিতব্য
৪৫৯. পূর্বে ছিল, এখন নেই — ভূতপূর্ব
৪৬০. প্রায় মৃত — এর এক কথায় প্রকাশ কি?– মৃতকল্প
৪৬১. পরিব্রাজকের ভিক্ষা — মাধুকরী
৪৬২. পরের অন্নে যে বেঁচে থাকে — পরান্নজীবী
৪৬৩. পরলোক সম্বন্ধীয় — পারলৌকিক
৪৬৪. পরের ভালো দেখে যার মন কাতর হয় — পরশ্রীকাতর
৪৬৫. পঙক্তিতে বসার অনুপযুক্ত — অপাঙক্তেয়
৪৬৬. প্রবল বায়ুর আঘাতজনিত শব্দ — নির্ঘাত
৪৬৭. পূর্ণিমার চাঁদ — রাকা
৪৬৮. পূর্বকাল সম্পর্কিত — প্রাক্তন
৪৬৯. প্রয়োগের পরে যে ক্রিয়া — প্রতিক্রিয়া
৪৭০. পায়ে হাঁটা — পদব্রজ
৪৭১. প্রচুর দুধ দেয় যে গাভী — পয়স্বিনী
৪৭২. প্রিয় কথা বলে যে নারী — প্রিয়ংবদা
৪৭৩. পুরুষের উদ্দাম নৃত্য — তাণ্ডব
৪৭৪. পা মোছার জন্য আস্তরণ — পাপোশ
৪৭৫. পাঁচমিশালি মসলা — পাঁচফোড়ন
৪৭৬. পান করার ইচ্ছা — পিপাসা
৪৭৭. প্রতিকার করার ইচ্ছা — প্রতিচিকীর্ষা
৪৭৮. প্রমাণ করার যোগ্য — প্রমেয়
৪৭৯. পাখি ধরার ফাঁদ বা রশি — বীতংস
৪৮০. পিতার ভ্রাতা — পিতৃব্য
৪৮১. পুরুষানুক্রমে ভোগ্য — মৌরসি
৪৮২. পলিমাটি সম্বন্ধীয় — পাললিক
৪৮৩. পশুর তুল্য আচরণ — পশ্বাচার
৪৮৪. পাপক্ষালনের জন্য কর্ম — প্রায়শ্চিত্ত
৪৮৫. পিশাচ সম্বন্ধীয় — পৈশাচিক
৪৮৬. পাহারার জন্য পদচারণ — টহল
৪৮৭. প্রথমে মধুর কিন্তু পরিমাণে নয় — আপাতমধুর

[ফ]

৪৮৮. ফুরায় না যা — অফুরন্ত
৪৮৯. ফল প্রসব করে যা — ফলপ্রসূ
৪৯০. ফুটছে এমন — ফুটন্ত
৪৯১. ফুল হতে জাত — ফুলেল
৪৯২. ফুল দিয়ে তৈরি গয়না — পুষ্পাভরণ
৪৯৩. ফুলের মতো অগ্নিকণা — স্ফুলিঙ্গ
৪৯৪. ফল পাকলে যে গাছ মরে যায় — ঔষধি
৪৯৫. ফিকা কমলা রং — বাসন্তী
৪৯৬. ফাঁস দিয়ে যে মানুষ মরে — ফাঁসুড়ে

[ব] -এর বাক্য সংকোচন:

৪৯৭. বিদেশে থাকে যে — প্রবাসী
৪৯৮. বুকে হেঁটে গমন করে যে — উদ্বাস্ত
৪৯৯. বাস্তু থেকে উৎখাত হয়েছে যে — উদ্বাস্তু
৫০০. বেশি কথা বলে যে — বাচাল
৫০১. বহু দেখেছে যে — বহুদর্শী, ভূয়োদর্শী
৫০২. বংশ পরিচয় জানা নেই যার — অজ্ঞাতকুলশীল
৫০৩. বোধ নাই যার — নির্বোধ
৫০৪. বিদ্যা আছে যার — বিদ্বান
৫০৫. বিসংবাদ নেই যাতে — অবিসংবাদিত
৫০৬. বেতন নেওয়া হয় না যাতে — অবৈতনিক
৫০৭. বীর সন্তান প্রসব করেন যে নারী — বীরপ্রসূ
৫০৮. বীর্যবতী বা সাহসী নারী — বীরাঙ্গনা
৫০৯. বলা হতে যাচ্ছে বা হবে — বক্ষ্যমাণ
৫১০. বিশ্বজনের হিতকর – এর এক কথায় প্রকাশ কি?– বিশ্বজনীন
৫১১. বহুর মধ্যে একজন — অন্যতম
৫১২. বর্ণনা করা যায় না যা — অবর্ণীয়
৫১৩. বমন করার ইচ্ছা — বিবমিষা
৫১৪. বলবার ইচ্ছা — বিবক্ষা
৫১৫. ব্যবস্থা করার ইচ্ছা — বিধিৎসা
৫১৬. বাঁচতে ইচ্ছা — জিজীবিষা
৫১৭. বৃহৎ অরণ্য — অরণ্যানী
৫১৮. বলা হয়েছে যা — উক্ত
৫১৯. বপন করা হয়েছে — উপ্ত
৫২০. বার বার পানিতে ডুবে যাওয়া ও ভেসে ওঠা — হাবুডুবু
৫২১. বাতাসে ‍উবে যায় এমন — উদ্বায়ী
৫২২. বনের অগ্নি – দাবানল, দাবাগ্নি
৫২৩. বাঘের চামড়া — কৃত্তি
৫২৪. বাঘের ডাক বা গর্জন — হালুম
৫২৫. বিহায়সে (আকাশে) গমন করে যে — বিহগ, বিহঙ্গ
৫২৬. বিজ্ঞাপন দ্বারা প্রচারিত — বিজ্ঞাপিত
৫২৭. বিজ্ঞান শিক্ষার জন্য পরীক্ষাগার — বিজ্ঞানাগার
৫২৮. বীজ বপনের উপযুক্ত সময় — জো
৫২৯. বাল্যে প্রৌঢ় তুল্য আচরণকারী — ইঁচড়ে পাকা
৫৩০. বাক্য ও মনের অগোচর — অবাঙ্মানসগোচর
৫৩১. ব্যাখ্যার যোগ্য — ব্যাখ্যেয়
৫৩২. বচনে কুশল — বাগ্মী
৫৩৩. বেদ সম্বন্ধীয় — বৈদিক
৫৩৪. বিদ্যার উৎসাহদাতা — বিদ্যোৎসাহী
৫৩৫. ব্যাকরণ জানেন যিনি — বৈয়াকরণ
৫৩৬. বাক্যের দ্বারা কৃত কলহ — বচসা
৫৩৭. বানরের ডাক — হুপ
৫৩৮. বাড়ছে যা — বাড়ন্ত
৫৩৯. বিধিকে অতিক্রম না করে — যথাবিধি
৫৪০. বংশের ঊর্ধ্বতন পুরুষ — পূর্বপুরুষ
৫৪১. বনিকের কার্য — বাণিজ্য
৫৪২. বলবার যোগ্য — বাচ্য
৫৪৩. বয়সে বড়ো — বয়োবৃদ্ধ/ বয়োজ্যেষ্ঠ
৫৪৪. বাসের যোগ্য — বাস্তব্য
৫৪৫. বিপরীত ভাব — বৈপরীত্য
৫৪৬. বিশেষভাবে দর্শন — বীক্ষণ

[ভ]

৫৪৭. ভাত প্রধান খাদ্য যার — ভেতো
৫৪৮. ভ্রমণ করা স্বভাব যার — ভ্রমর
৫৪৯. ভাবা যায় না যা — অভাবনীয়
৫৫০. ভস্মে পরিণত হয়েছে যা — ভস্মীভূত
৫৫১. ভবিষ্যৎ চিন্তা করে কাজ করে যে — দূরদর্শী
৫৫২. ভুজ বা বাহুতে ভর করে চলে যে — ভুজগ
৫৫৩. ভূ-কেন্দ্রের মুখে জড়পদার্থের আকর্ষণ — অভিকর্ষ
৫৫৪. ভিতর থেকে গোপনে ক্ষতিসাধন — অন্তর্ঘাত
৫৫৫. ভববন্ধন হতে নিষ্কৃতি — মোক্ষ
৫৫৬. ভাদ্রমাস সম্বন্ধীয় — ভাদুরে
৫৫৭. ভ্রমরের শব্দ — গুঞ্জন
৫৫৮. ভোজন করার ইচ্ছা — বুভুক্ষা
৫৫৯. ভোজন করতে ইচ্ছুক — বুভুক্ষু
৫৬০. ভ্রাতাদের মধ্যে পরস্পর সদ্ভাব — সৌহার্দ
৫৬১. ভগীরথের আনীত নদী — ভাগীরথী
৫৬২. ভুক্ত বস্তু উদগিরণ করে পুনরায় চর্বণ — রোমস্থন

[ম]

৫৬৩. মরে না যে — অমর
৫৬৪. মরতে বসেছে যে — মুমূর্ষু
৫৬৫. মধু পান করে যে — মধুপ
৫৬৬. মর্মকে পীড়া দেয় যে — মর্মন্তুদ
৫৬৭. মর্মে বেদনা দেয় যা — মর্মান্তিক
৫৬৮. মন হরণ করে যা — মনোহর
৫৬৯. ময়ূরের কণ্ঠের রং যার — ময়ূরকণ্ঠী
৫৭০. মমতা নেই যার — নির্মম
৫৭১. মীনের অক্ষির ন্যায় অক্ষি যার — মীনাক্ষি
৫৭২. মৃৎ অঙ্গ যার — মৃদঙ্গ
৫৭৩. মাটি ভেদ করে যে ওঠে — উদ্ভিদ
৫৭৪. মৃত্তিকা দ্বারা নির্মিত — মৃন্ময়
৫৭৫. মৃত্তিকা নির্মিত ভোজনপাত্র — শানকি
৫৭৬. মেঘের ধ্বনি — – এর এক কথায় প্রকাশ কি?– জীমূতমন্দ্র
৫৭৭. ময়ূরের বিস্তৃত পুচ্ছ — পেখম
৫৭৮. মুক্তি লাভের ইচ্ছা — মুমুক্ষা
৫৭৯. মুক্তি পেতে ইচ্ছুক — মুমুক্ষু
৫৮০. মুষ্টির সাহায্যে যা পরিমাপ করা যায় — মুষ্টিমেয়
৫৮১. ময়ূরের ডাক — কেকা
৫৮২. মাসের শেষ দিন — সংক্রান্তি
৫৮৩. মুগ্ধ করে যে নারী — মোহিনী
৫৮৪. মৃত গবাদি পশু ফেলা হয় যেখানে — ভাগাড়
৫৮৫. মূল সম্বন্ধীয় — মৌল, মৌলিক
৫৮৬. মনন করলে ত্রাণ পাওয়া যায় যাতে — মন্ত্র
৫৮৭. মক্ষিকাও প্রবেশ করতে পারে না যেখানে — নির্মক্ষিক
৫৮৮. মেঘে আচ্ছন্ন হওয়ার ফলে স্নিগ্ধ — মেঘমেদুর
৫৮৯. মনে যার জন্ম– মনসিজ
৫৯০. মাথার খুলি – এর এক কথায় প্রকাশ কি?– করোটি

[য] -এর বাক্য সংকোচন:

৫৯১. যে জয় করে — বিজেতা
৫৯২. যে সব জানে — সর্বজ্ঞ
৫৯৩. যে বুকে হেঁটে চলে — সরীসৃপ
৫৯৪. যে সব হারিয়েছে — সর্বহারা
৫৯৫. যে সহ্য করতে পারে — সহিষ্ণু
৫৯৬. যে সমস্তই সহ্য করে — সর্বংসহা
৫৯৭. যে একটুতেই মারামারি করতে চায় — মারকুট
৫৯৮. যে বেঁচে থেকেও মৃতবৎ — জীবন্মৃত
৫৯৯. যে সম্পত্তি স্থানান্তরিত করা যায় — অস্থাবর
৬০০. যে গাছ কোনো কাজে লাগে না — আগাছা
৬০১. যে হিসাব করে ব্যয় করে না — অমিতব্যয়ী
৬০২. যে ভূমি উর্বর নয় — অনুর্বর
৬০৩. যে পুরুষ বিয়ে করেনি — অকৃতদার
৬০৪. যে মেয়ের বিয়ে হয়নি — অনূঢ়া
৬০৫. যে নারীর সন্তান হয় না — বন্ধ্যা
৬০৬. যে নারীর স্বামী মারা গেছে — বিধবা
৬০৭. যে স্ত্রী বশীভূত — স্ত্রৈন
৬০৮. যে নারীর হিংসা নেই — অনসূয়া
৬০৯. যে নারীর স্বামী বিদেশে থাকে — প্রোষিতভর্তৃকা
৬১০. যে নারীর হাসি সুন্দর — সুস্মিতা
৬১১. যে নারীর হাসি পবিত্র — শুচিস্মিতা
৬১২. যে নারীর স্বামীও নেই সন্তানও নেই — অবীরা
৬১৩. যে নারীর সন্তান হয়ে মরে যায় — মৃতবৎসা
৬১৪. যে নারী নিজে বর বরণ করে নেয় — স্বয়ংবরা
৬১৫. যে সন্তান পিতার মৃত্যুর পর জন্মগ্রহণ করে — মরণোত্তরজাতক
৬১৬. যে বন হিংস্র জন্তুতে পরিপূর্ণ — শ্বাপদসংকুল
৬১৭. যে পুরুষ বিয়ে করেছে — কৃতদার
৬১৮. যে ব্যস্ত থেকে উৎখাত হয়েছে — উদ্বাস্তু
৬১৯. যে কৃৎসা রটায় — পিশুন
৬২০. যে তিথিতে পূর্ণচন্দ্রের উদয় হয় — পূর্ণিমা
৬২১. যে বা যা আছে — বিজিত
৬২২. যার অন্য উপায় নেই — অনন্যোপায় 
৬২৩. যার তল স্পর্শ করা যায় না — অতলস্পর্শ
৬২৪. যার আগমনের কোনো তিথি নেই — অতিথি
৬২৫. যার নাম পরিচয় জানা নেই — অজ্ঞাত 
৬২৬. যার স্ত্রী মারা গেছে — বিপত্নীক
৬২৭. যার যশ আছে – এর এক কথায় প্রকাশ কি?– যশস্বী
৬২৮. যার সর্বস্ব খোয়া গেছে — সর্বস্বান্ত
৬২৯. যার সর্বস্ব চুরি গেছে — হৃতসর্বস্ব
৬৩০. যার প্রকৃত বর্ণ ধরা যায় না — বর্ণচোরা
৬৩১. যার কোনো উপায় নেই — নিরুপায়
৬৩২. যার জিহ্বা লকলক করে — লেলিহান
৬৩৩. যার ঘৃণা নেই — নির্ঘৃণ
৬৩৪. যার রসবোধ আছে — রসিক
৬৩৫. যার পূর্ব জন্মের কথা স্বরণ থাকে — জাতিস্মর
৬৩৬. যাঁর কীর্তি শ্রবণে পূণ্য জন্মে — পুণ্যশ্লোক
৬৩৭. যার অনুরাগ দূর হয়েছে — বীতরাগ
৬৩৮. যার যশ আছে — যশস্বী
৬৩৯. যা বলা হবে — বক্তব্য
৬৪০. যা বিনষ্ট হয় না — অবিনশ্বর
৬৪১. যা গলে যায় না — অদ্রব
৬৪২. যা বার বার দুলছে — দোদুল্যমান
৬৪৩. যা লঙ্ঘন করা যায় না — অলঙ্ঘ্য
৬৪৪. যা অষ্ট প্রহর পরার যোগ্য — আটপৌরে
৬৪৫. যা মাটিভেদ করে উঠেছে — উদ্ভিদ
৬৪৬. যা দীপ্তি পাচ্ছে — দেদীপ্যমান
৬৪৭. যা বহুকষ্টে লাভ করা যায় — দুর্লভ
৬৪৮. যা বিনা যত্নে লাভ করা গিয়েছে — অযত্নলব্ধ
৬৪৯. যা সহজে লঙ্ঘন করা যায় না — দুর্লঙ্ঘ্য
৬৫০. যা সহজে মরে না — দুর্মর
৬৫১. যা সহজে দমন করা যায় না — ‍দুর্দম
৬৫২. যা সহ্য করা যায় না — দুর্বিষহ
৬৫৩. যা আছে – এর এক কথায় প্রকাশ কি?– বিদ্যমান
৬৫৪. যা সাধারণের মধ্যে দেখা যায় না এমন — অনন্যসাধারণ
৬৫৫. যা পূর্বে দেখা যায়নি এমন — অদৃষ্টপূর্ব
৬৫৬. যা অধ্যয়ন করা হয়েছে — অধীত
৬৫৭. যা জলে চরে — জলচর
৬৫৮. যা স্থলে চরে — স্থলচর
৬৫৯. যা জলে ও স্থলে চরে — উভচর
৬৬০. যা অতি দীর্ঘ নয় — নাতিদীর্ঘ
৬৬১. যা কোথায়ও উঁচু কোথাও নিচু — বন্ধুর
৬৬২. যা সহজেই ভেঙ্গে যায় — ভঙ্গুর
৬৬৩. যা ঘটবেই — ভবিতব্য
৬৬৪. যা বলার যোগ্য নয় — অকথ্য
৬৬৫. যা সরোবরে জন্মে — সরোজ
৬৬৬. যা হৃদয় বিদীর্ণ — হৃদয়বিদারক
৬৬৭. যা ভাগ করা হবে — ভাজ্য
৬৬৮. যা ভাগ করা হয়েছে — ভাজিত
৬৬৯. যা পরে ঘটবে — ভাবী, ভবিতব্য
৬৭০. যা জয় করা হয়েছে — বিজিত
৬৭১. যা জানা গিয়েছে — বিদিত
৬৭২. যা বিলীন হচ্ছে — বিলীয়মান
৬৭৩. যা বিসর্জন করা হয়েছে — বিসর্জিত
৬৭৪. যা বাইরে আছে — বহিস্থ
৬৭৫. যা পোঁতা হয়েছে — প্রোথিত
৬৭৬. যা পূর্বে দেখা হয়েছে — পূর্বদৃষ্ট
৬৭৭. যা নিঃশেষে পান করা হয়েছে — নিপীত
৬৭৮. যা খনন করা হয়েছে — নমিত
৬৭৮. যা দৃষ্টিগোচর হয়েছে — প্রত্যক্ষীভূত
৬৭৯. যা লাফিয়ে চলে — প্লবগ
৬৮০. যা নিবারণ করা কষ্টকর -এর বাক্য সংকোচন কি? — দুর্নিবার
৬৮১. যা দীপ্তি পাচ্ছে — দীপ্তমান
৬৮২. যিনি প্রথমে পথ দেখান — পথিকৃৎ
৬৮৩. যিনি ন্যায়শাস্ত্রে পণ্ডিত — নৈয়ায়িক
৬৮৪. যিনি যুদ্ধে স্থির থাকেন — যুধিষ্ঠির
৬৮৫. যিনি বিদ্যালাভ করেছেন — কৃতবিদ্যা
৬৮৬. ‍যিনি নিয়ন্ত্রণ করেন — নিয়ন্তা
৬৮৭. যাকে হত্য করা হয়েছে — নীত
৬৮৮. যাকে মুগ্ধ করা হয়েছে — মোহিত
৬৮৯. যাকে নেওয়া হয়েছে — নমিত
৬৯০. ‍যাকে শাসন করা দুঃসাধ্য — দুঃশাসন
৬৯১. যাকে সহজেই জয় করা যায় না — দুর্জয়
৬৯২. যুবতী জায়া যার — যুবজানি
৬৯৩. যুদ্ধের জন্য ইচ্ছুক — যুযুৎসু

[র]

৬৯৪. রোদন করেছে যে — রোরুদ্যমান
৬৯৫. রব শুনে এসেছে যে — রবাহুত
৬৯৬. রন্ধনের যোগ্য — পাচ্য
৬৯৭. রক্ষা করার যোগ্য — রক্ষণীয়
৬৯৮. রাত্রি ও দিবসের সন্ধিক্ষণ — গোধূলি
৬৯৯. রেশমের দ্বারা তৈরি — রেশমি
৭০০. রস আস্বাদন করা হয় যার দ্বারা — রসনা 
৭০১. রেখা দিয়ে প্রস্তুত — রৈখিক
৭০২. রাজা কর্তৃক প্রেরিত দূত — রাজদূত

[ল]

৭০৩. লাভ করার ইচ্ছা — লিপ্সা
৭০৪. লোহার মতো শক্ত — অয়স্কঠিন
৭০৫. লোক গণনা — আদমশুমারি
৭০৬. লোক সম্বন্ধীয় -এর বাক্য সংকোচন কি? — লৌকিক
৭০৭. লাফিয়ে পার হওয়া — টপকানো
৭০৮. লয় প্রাপ্ত হয়েছে যা — লীন

[শ]-এর বাক্য সংকোচন:

৭০৯. শৃঙ্খলা মানে না যে — উচ্ছৃঙ্খল
৭১০. শত্রুকে জয় করে যে — শত্রুজিৎ
৭১১. শিক্ষা করছে যে — শিক্ষানবিস
৭১২. শত্রু বধ করে যে — শত্রুঘ্ন
৭১৩. শিক্ষা লাভ উদ্দেশ্য যার — শিক্ষার্থী
৭১৪. শুভক্ষণে জন্ম যার — ক্ষণজন্মা
৭১৫. শ্রদ্ধা ভক্তি দূর হয়েছে যার — বীতশ্রদ্ধ
৭১৬. শরৎকাল সম্বন্ধীয় — শারদীয় 
৭১৭. শহর সম্বন্ধীয় — শহুরে
৭১৮. শাসন করা যায় যাকে — শিষ্য
৭১৯. শৈশব কাল থেকে — আশৈশব
৭২০. শক্তিকে অতিক্রম না করে — যথাশক্তি
৭২১. শত পাপড়ি বিশিষ্ট — শতদল
৭২২. শ্রদ্ধার যোগ্য — শ্রদ্ধেয়
৭২৩. শত অব্দের সমাহার — শতাব্দী
৭২৪. শুনা হচ্ছে যা — শ্রুয়মান
৭২৫. শ্রবণ করা হয়েছে এমন — শ্রুত
৭২৬. শিয়ালের ডাক — হুক্কাহুয়া
৭২৭. ষোল বয়স বয়স্কা -এর বাক্য সংকোচন কি? — ষোড়শী

[স]

৭২৮. সহজে ভয় পায় যে — ভীরু , ভীতু
৭২৯. স্পৃহা হারিয়েছে যে — বীতস্পৃহা
৭৩০. সহযে বুঝা যায় না যা — সুবোধ্য
৭৩১. সাপের খোলস — নির্মোক
৭৩২. সমুদ্র থেকে হিমাচল পর্যন্ত — আসমুদ্রহিমাচল
৭৩৩. সমস্ত জীবন ব্যাপী — যাবজ্জীবন
৭৩৪. সাক্ষাৎ দ্রষ্টা — সাক্ষী
৭৩৫. সাহিত্যে নিপুন — সাহিত্যিক
৭৩৬. সমতার ভাব — সাম্য
৭৩৭. সর্বজনের হিতকর — সর্বজনীন
৭৩৮. সম্মুখে অগ্রসর হয়ে অভ্যর্থনা — প্রত্যুদগমন
৭৩৯. সুন্দর হৃদয় যার — সৃহৃদ
৭৪০. সভার সদস্য — সভ্য
৭৪১. স্ত্রীর সঙ্গে বর্তমান — সস্ত্রীক
৭৪২. সহজে যা পাওয়া যায় না — দুষ্প্রাপ্য
৭৪৩. সিংহের ডাক — সিংহনাদ
৭৪৪. সুদে টাকা খাটানো — তেজারতি
৭৪৫. সংসারের প্রতি বিরাগ — নির্বেদ

[হ] -এর বাক্য সংকোচন:

৭৪৬. হরিণের চামড়া — অজিন
৭৪৭. হাতির ডাক — বৃংহগ/বৃংহতি
৭৪৮. হাঁসের ডাক — প্যাঁক প্যাঁক
৭৪৯. হেমন্তে জাত — হৈমন্তিক
৭৫০. হরণের ইচ্ছা — জিহীর্ষা 
৭৫১. হত্যা/হনন করার ইচ্ছা — জিঘাংসা
৭৫২. হত্যা করতে ইচ্ছুক যে — জিঘাংসু
৭৫৩. হস্তী রাখার স্থান — পিলখানা 
৭৫৪. হৃত হয়েছে সর্বস্ব যার — হৃতসর্বস্ব
৭৫৬. হৃদয় সম্পর্কিত -এর বাক্য সংকোচন কি? — হার্দিক
৭৫৭. হস্তী তাড়নের নিমিত্ত ব্যবহৃত লৌহদণ্ড — অঙ্কুশ


এই পোস্ট সহায়ক ছিল?

0 out of 0 Marked as Helpfull !