অভিধান ও এর বর্ণানুক্রম Last updated: 4 months ago

অভিধানে শব্দের পর শব্দ সাজানো থাকে বর্ণানুক্রমিকভাবে। প্রথমে ‘অ’ দিয়ে যেসব শব্দের বানান শুরু, সেগুলো থাকে। তারপর ‘’ দিয়ে, তারপর ‘ই’ দিয়ে; এভাবে বর্ণের ক্রম অনুসারে সাজানো থাকে অভিধান। তবে সাধারণভাবে বর্ণের যে ক্রম অনুসরণ করা হয় তা থেকে অভিধানে সামান্য ব্যতিক্রম দেখা গেছে। নিচে অভিধানে অন্তর্ভুক্ত শব্দের বর্ণানুক্রম দেখানো হলো –

সাধারণ বর্ণানুক্রম – অ আ ই ঈ উ ঊ ঋ এ ঐ ও ঔ ক খ গ ঘ ঙ চ ছ জ ঝ ঞ ট ঠ ড ঢ ণ ত থ দ ধ ন প ফ ব ভ ম য র ল শ ষ স হ ড় ঢ় য় ৎ ং ঃ ঁ

অভিধানে ব্যবহৃত বর্ণানুক্রম – অ আ ই ঈ উ ঊ ঋ এ ঐ ও ঔ ং ঃ ঁ ক ক্ষ খ গ ঘ ঙ চ ছ জ ঝ ঞ ট ঠ ড ড় ঢ ঢ় ণ ত ৎ থ দ ধ ন প ফ ব ভ ম য য় র ল শ ষ স হ

প্রশ্ন ১: অভিধান অনুযায়ী নিচের কোন বর্ণানুক্রমটি সঠিক?

  1. পাওয়া, গাং, গাঁ, গাঙ্গ
  2. গাং, পাওয়া, গাঁ, গাঙ্গ
  3. গাং, গাঁ, গাঙ্গ, পাওয়া
  4. গাং, গী, পাওয়া, গাঙ্গ

ব্যাখ্যা: মোট শব্দ আছে ৪ টি। যথা: পাওয়া, গাং, গাঁ, গাঙ্গ। এখন একটু চিন্তা করুন, অভিধানে কী ‘গ’ দিয়ে গঠিত হওয়া শব্দ আগে থাকবে না কী ‘প’ দিয়ে গঠিত হওয়া শব্দ আগে থাকবে? উত্তর: ‘গ’ দিয়ে গঠিত হওয়া শব্দ। এবার লক্ষ্য করে দেখুন, অপশন A, B এবং D এর অপশনগুলোতে ‘পাওয়া’ শব্দের পরে ‘গ’ দিয়ে গঠিত কোনো শব্দ দেয়া আছে যা অভিধানের নিয়ম বহির্ভূত। তাই সঠিক উত্তর হবে C অর্থাৎ গাং, গাঁ, গাঙ্গ, পাওয়া।

প্রশ্ন ২: অভিধান অনুযায়ী নিচের কোন বর্ণানুক্রমটি সঠিক?

  1. ঘুঁটা, ঘুঁটনি, ঘুঘু, ঘুঙ্গুর
  2. ঘুঘু, ঘুঁটা, ঘুটনি, ঘুঙ্গুর
  3. ঘুঘু, ঘুঙ্গুর, ঘুঁটা, ঘুঁটনি
  4. ঘুঁটনি, ঘুঁটা, ঘুঘু, ঘুঙ্গুর

ব্যাখ্যা

মোট শব্দ আছে ৪ টি। যথা: ঘুঁটা, ঘুঁটনি, ঘুঘু, ঘুঙ্গুর। এবার বেশিরভাগ শিক্ষার্থীরই মাথা ঘুরাবে। কারণ, প্রতিটি শব্দের প্রতিটি অপশনই ‘ঘ’ দিয়ে গঠিত হয়েছে। চিন্তার কিছু নেই, এধরনের প্রশ্ন আসলে তখন স্বরবর্ণের সংক্ষিপ্ত রূপ অর্থাৎ ‘কার’ এর ক্রমকে প্রাধান্য দিতে হবে। অর্থাৎ প্রথমে হবে ঘা, তারপর ঘি, তারপর ঘী, তারপর পর্যায়ক্রমে ঘু, ঘূ, ঘৃ, ঘে, ঘৈ, ঘো, ঘৌ।

এবার তাহলে ২য় প্রশ্নের অপশনগুলোর দিকে তাকাই আরেকবার। ঘুঁটা, ঘুঁটনি, ঘুঘু, ঘুঙ্গুর। কী! এখনও নিশ্চয়ই মাথা ঘুরছে! কারণ এখানে সবগুলো শব্দই তো ‘উ-কার’ দিয়ে গঠিত হয়েছে। এই ক্ষেত্রে দেখতে হবে ং, ঃ, ঁ আছে কার সাথে? কারণ অভিধানে স্বরবর্ণের পরেই এই তিনটি পরাশ্রয়ী বর্ণের অবস্থান। তার মানে ঘুঁটা আর ঘুঁটনি এই দুটি শব্দের মধ্যে কোনো একটি আগে বসবে। এবার লক্ষ্য করুন, যেহেতু ‘ঘুঁটা’ আর ‘ঘুঁটনি’ দুটি শব্দেরই শুরু হয়েছে ‘ঘুঁ’ দিয়ে অর্থাৎ একই রকম সুতরাং ক্রম নির্ণয়ের জন্য ‘ঘুঁ’ এর পরের বর্ণের দিকে লক্ষ্য করতে হবে। তাহলে ভাবুন, অভিধানে কী ‘ট’ আগে বসে? না কী ‘টা’ আগে বসে? উত্তর: অবশ্যই ‘ট’ আগে বসে। সুতরাং সঠিক উত্তর D অর্থাৎ ঘুঁটনি, ঘুঁটা, ঘুঘু, ঘুঙ্গুর।

মনে রাখতে হবে

  • যখন একই বর্ণ দিয়ে সবগুলো শব্দ তৈরি হয় তখন তাঁর সাথে যুক্ত আ-কার,ই-কার,ঈ-কার সিরিয়াল দেখতে হবে।
  • যদি দুটি আ-কার বা দুটি ই-কার পাশাপাশি থাকে তাহলে শব্দগুলোর মধ্যে এর পরবর্তি বর্ণটি দেখতে হবে যে বর্ণমালায় কোন বর্ণটি আগে বসে।


এই পোস্ট সহায়ক ছিল?

0 out of 0 Marked as Helpfull !